1. dev@desher.news : Admin : desher news
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:৩৭ পূর্বাহ্ন

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তির মেয়াদ বাড়লো আরো ৬ মাস

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

আগের শর্তেই বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সাজা স্থগিতের মেয়াদ আরো ৬ মাস বাড়ানো হয়েছে। তবে এসময় তিনি চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারবেন না। স্থায়ী মুক্তির জন্য আদালতে যেতে হবে বলেও জানানো হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর থেকে ৬ মাস গণনা শুরু করা হবে।

গতকাল রোববার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান। তিনি জানান, খালেদা জিয়ার পরিবার, মানে তার ছোট ভাই শর্ত সাপেক্ষে সময়টা বর্ধিত করার একটি আবেদন করেছিলেন। আমরা সেই আবেদন যথাযথ প্রক্রিয়ায় পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অনুমোদন দিয়েছি। তিনি (খালেদা জিয়া) নিজ বাসায় থেকে যেভাবে চিকিৎসা নিতে চান, সেভাবে চিকিৎসা নেবেন। তবে তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না। আগে যেসব শর্ত ছিল, সে সব শর্ত বহাল থাকবে। স্থায়ী মুক্তির দাবি ছিল-সে বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে আদালত জানে। তাহলে তাদের আদালতে যেতে হবে। তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের যে ব্যবস্থা, সেটা আমরা নিয়েছি। আর বাদবাকি যেগুলো, সেটার জন্য আদালতে যেতে হবে। দুর্নীতির দুই মামলায় দ-িত সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে গত বছর ২৫ মার্চ নির্বাহী আদেশে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার। দ-ের কার্যকারিতা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা হলে তিনি কারামুক্ত হন। এরপর গতবছর সেপ্টেম্বরে এবং চলতি বছরের মার্চে আরো দুই দফায় ছয় মাস করে বাড়ানো হয় সাজা স্থগিতের মেয়াদ। এ নিয়ে মোট তিন দফায় ১৮ মাস সেই মেয়াদ বাড়ানো হল।

৭৬ বছর বয়সী খালেদা জিয়া বর্তমানে গুলশানে তার ভাড়া বাসা ‘ফিরোজায়’ রয়েছেন। তিনি আর্থারাইটিস, ডায়াবেটিস, চোখের সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছেন। এর মধ্যে তিনি করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাও নিয়েছেন। খালেদা জিয়ার সাময়িক মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর পাশাপাশি চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে নেয়ার অনুমতিও চাওয়া হয়েছিল পরিবারের পক্ষ থেকে। আইন মন্ত্রণালয় সাময়িক মুক্তির মেয়াদ বাড়ানোর পক্ষে মত দিলেও বিদেশে নেয়ার বিষয়ে কোনো মতামত দেয়নি বলে গত ১২ সেপ্টেম্বর আইনমন্ত্রী আনিসুল হক জানিয়েছিলেন। তিনি আগেই বলেছিলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিদেশযাত্রার আবেদন বিবেচনার সুযোগ নেই। তাকে কারাগারে ফিরে তবেই আবেদন করতে হবে।

সিআরপিসির ৪০১(১) ধারায় বলা আছে, যখন কোনো ব্যক্তিকে অপরাধের জন্য শাস্তি দেয়া হয়, তখন সরকার যে কোনো সময় শর্ত ছাড়াই অথবা শর্তসাপেক্ষে শাস্তি স্থগিত করতে পারে অথবা তাকে যে শাস্তি দেয়া হয়েছে তার পুরো বা যে কোনো অংশ স্থগিত করতে পারে। নিয়ম অনুযায়ী আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত পাওয়ার পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত ফাইল প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়। সেখান থেকে অনুমোদন পাওয়ার পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গতকাল রোববার বিষয়টি সাংবাদিকদের জানালো।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় পাঁচ বছরের সাজায় কারাজীবন শুরু করেন খালেদা জিয়া। পরে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায়ও তার সাজার রায় হয়। তার বিরুদ্ধে আরো ৩৪টি মামলা রয়েছে। ২৫ মাস কারাভোগের পর করোনা পরিস্থিতিতে গত বছর ২৫ মার্চ খালেদা জিয়ার সাজা শর্তসাপেক্ষে ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা হয়। এরপর দ্বিতীয় দফায় আরো ছয় মাস সাজা স্থগিতের মেয়াদ বাড়ানো হয়। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত মার্চ মাসে তৃতীয় দফায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে খালেদা জিয়ার কারাভোগের মেয়াদ ছয় মাস স্থগিত করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। চলতি সেপ্টেম্বরে সেই মেয়াদ শেষ হতে যাচ্ছে। মেয়াদ শেষের আগেই খালেদার ভাই শামীম এস্কান্দার আবেদন করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY : Sky Host BD