1. dev@desher.news : Admin : desher news
শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০১:৪৬ পূর্বাহ্ন

ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যান্য এক কিংবদন্তি লেসলি হিল্টন

মোঃ সাইমুন আলম ইপ্তি
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১

লেসলি হিল্টন।নামটি অনেকের কাছেই অজানা।তার পুরো নাম ছিল লেসলি জর্জ হিল্টন। তিনি ছিলেন তৎকালীন জ্যামাইকা উপনিবেশের কিংস্টনে জন্মগ্রহণকারী ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার এবং ফাঁসির দণ্ডাদেশ প্রাপ্ত একমাত্র আন্তর্জাতিক ক্রিকেটর।

১৯০৫ সালের ২৯ মার্চ তৎকালীন জ্যামাইকা উপনিবেশের কিংস্টনের একটি দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি।ছোট থেকেই তার গায়ে ছিল অসম্ভব শক্তি।আর এই শক্তিই হয়ত তার জন্য সৌভাগ্য নিয়ে আসছিল।ঘরোয়া প্রথম-শ্রেণীর ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান ক্রিকেটে জ্যামাইকা দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন। দলে তিনি মূলতঃ ডানহাতি ফাস্ট বোলার হিসেবে খেলতেন। এছাড়াও, নিচেরসারিতে ডানহাতে ব্যাটিং করতেন তিনি।আর এভাবেই ধীরে ধীরে ঘুরতে থাকে তার ভাগ্যের চাকা।১৯২৭ সাল থেকে জ্যামাইকা দলের নিয়মিত সদস্যরূপে খেলতে থাকেন। বেশ কয়েকবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলে খেলায় অংশগ্রহণ থেকে উপেক্ষিত হন।অবশেষে ৮ জানুয়ারি, ১৯৩৫ তারিখে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে লেসলি হিল্টনের।এরপর তাকে আর পিছনে ঘুরে তাকাতে হয়নি। ১৯৩৫ থেকে ১৯৩৯ সময়কালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেছেন।১৯৩৯ সালে তিন টেস্টে গড়া সিরিজ খেলার জন্য ইংল্যান্ড গমন করেন। তবে দূর্বল ক্রীড়াশৈলীর কারণে টেস্ট দলের বাইরে চলে আসতে হয় তাকে। দেশে ফিরে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন।

তার এই সফলতার জীবনে প্রেম নামক বসন্তও এসেছিল। কিন্তু এই বসন্তই যে তার জন্য কাল হয়ে দাঁড়াবে তা কে জানতো।১৯৪২ সালে লেসলি হিল্টন পুলিশ ইন্সপেক্টরের কন্যা লারলাইন রোজের সাথে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন। ১৯৪৭ সালে এ দম্পতির এক পুত্র সন্তান জন্মগ্রহণ করে। তার ১২ বছরের দাম্পত্য জীবনে স্ত্রী কে ভালোবাসাসহ কোন কিছুতেই তিনি তাকে কম দেননি। ১৯৫০-এর দশকে লারলাইন হিল্টন পোশাক নকশাকার বিষয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণের উদ্দেশ্য নিয়ে নিউইয়র্ক ফ্যাশন স্কুলে ভর্তি হন ও দীর্ঘদিন অবস্থান করেন। সেখানে রয় ফ্রান্সিসের সাথে স্বাক্ষাৎ হয় ও অন্তরঙ্গ সম্পর্ক গড়ে উঠে। এ কথা শুনে তিনি তাকে জেরা করেন ও লারলাইন হিল্টন এ সম্পর্ক জানান। এরপর লেসলি হিল্টন তাকে সাতবার গুলি করেন। আদালতে তিনি দোষীসাব্যস্ত হন ও মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হন এবং ১৭ মে, ১৯৫৫ তারিখে সেন্ট ক্যাথরিনের স্পেনিশ টাউনে লেসলি হিল্টনকে ফাসীকাষ্ঠে ঝোলানো হয়।
সচরাচর, ক্রিকেট ইতিহাসে লেসলি হিল্টনের অবদানকে তেমন গুরুত্ব দেয়া হয়নি। ১৯৫৬ সালে উইজডেনে তার মৃত্যুর তারিখ প্রকাশ করা হলেও কেন তিনি মারা গেলেন তা তুলে ধরা হয়নি। অনেক বছর পর বিষয়টি সংক্ষিপ্ত আকারে প্রকাশ করা হয়। পরবর্তীকালে লেখকেরা মনে করেন যে, আরও সহানুভূতির সাথে এ মামলাটি পরিচালিত হতে পারতো এবং লেসলি হিল্টনের মানসিক চিকিৎসার বিষয়টিও এর সাথে যুক্ত ছিল।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার সম্পূর্ণ বেআইনি
Theme Developed BY : Sky Host BD