1. milon@desher.news : Milon :
  2. shahriar@desher.news : Shahriar :
বুধবার, ১৯ মে ২০২১, ০৯:১৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞাপন

ইউএনসিআরসি আর্টিকেল থার্টিন বাস্তবায়নে ভুমিকা রাখবে ” চাইল্ড ম্যাসেজ’ —সিইও 

দেশের নিউজ ডেস্ক::
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১

 জাতিসংঘের শিশু সনদ নীতিমালা অনুসারে প্রতিটি শিশুর ই রয়েছে মতামত প্রকাশ ও বাক- স্বাধীনতা। ১৯৮৯ সালে জাতিসংঘ শিশু সনদ আইন আর্টিকেল থার্টিন এই ব্যাপারে বিস্তৃত ব্যাখ্যা করে বিশ্ব সংস্থাটি।

শিশুদের বাক স্বাধীনতা বাস্তবায়নে আগামী মাসের ১০ তারিখ উদ্বোধন হতে যাচ্ছে শিশু ভিত্তিক গণমাধ্যম ‘ চাইল্ড ম্যাসেজ ‘।যার পরিকল্পনা ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ একজন বাংলাদেশী। অতীতে ইউনিসেফ, সেভ দ্য চিলড্রেনস পদক প্রাপ্ত সহ পেয়েছেন দেশী-বিদেশী সম্মাননা। অংশ নিয়েছেন জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, কানাডা সরকারের বিভিন্ন ইভেন্টে। গত বছর জাতিসংঘ তাদের ৭৫ বছর উপলক্ষে করা এক পোস্টারে স্থান পায় আরিফের ছবি।
কানাডা সরকার গত নভেম্বর তাদের শিশু দিবস উপলক্ষে করা এক আয়োজনে সম্মান প্রদর্শন করেন এই বাংলাদেশী শিশু অধিকারকর্মীর প্রতি।
চাইল্ড ম্যাসেজ গণমাধ্যম টি কেন করা হচ্ছে? এই প্রসঙ্গে সিইও এই প্রতিবেদককে বলেন, জাতিসংঘের শিশু সনদ আর্টিকেল থার্টিন কে বাস্তবায়নের জন্য আমরা এই শিশু গণমাধ্যম টি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।শিশুদের মতামত প্রকাশ, বাক-স্বাধীনতার তাদের অধিকার। চাইল্ড ম্যাসেজ বিশ্ব শিশুদের মধ্যে যেমন  যোগাযোগ স্থাপন করে দিবে তেমনি এক দেশের শিশু অন্য দেশের শিশুদের সম্পর্কে জানতে পারবে।
শিশুদের অংশগ্রহণ সম্পর্কে এই বাংলাদেশী তরুন বলেন, আমাদের অনলাইন পোর্টালে হাউ মে ইউ জয়েন এই ক্যাটাগরিতে ক্লিক করলে পাবে আবেদন ফরম। এরপর গ্রুমিং ও প্রশিক্ষণ করানো হবে স্যাটেলাইট টিভি স্টেশন, জাতীয় দৈনিক – অনলাইন পত্রিকার সম্পাদক, বার্তা সম্পাদক সহ এক্সপার্ট দ্বারা।
শিশুদের সংবাদ ভিত্তিক গণমাধ্যম টির হেড অব নিউজ হিসেবে কাজ করছেন আন্তর্জাতিক প্রভাবশালী বার্তা সংস্থা ‘ রয়টার্সের সাবেক সংবাদকর্মী মার্ক কার্লোস। বার্তা সম্পাদক হিসেবে আছেন ব্রিটিশ সাংবাদিক এলিস্টার ব্রিংটন ও জনসংযোগ কর্মকর্তা হিসেবে আছেন অস্ট্রেলিয়ান চাইল্ড মিডিয়া এক্সপার্ট লিউ রিন্ডা।
চাইল্ড ম্যাসেজ প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এই সময় জানান, শিশুরা যদি কথা ই বলতে না পারে তাহলে তার অধিকার বাস্তবায়ন সে কখনো ই করতে পারবেনা। জাতিসংঘ এই ব্যাপারে স্পষ্ট ব্যাখ্যা করেছে এবং বলেছে
Every child must be free to say what they think and to seek and receive information of any kind as long as it is within the law.
তার জন্য ই আমরা নাম রেখেছি চাইল্ড ম্যাসেজ। আর আমরা বিশ্বাস করি শিশুদের কন্ঠ নির্দিষ্ট কোথাও সীমাবদ্ধ থাকতে পারেনা। তার জন্য আমরা শ্লোগান বলেছি, চিলড্রেনস ভয়েজ হেজ নো বর্ডারস৷
প্রত্যাশা সম্পর্কে জানতে চাইলে এই বাংলাদেশী তরুন বলেন, সরকারগুলোর সঙ্গে শিশুদের একটি ব্রীজ হয়ে কাজ করবে” চাইল্ড ম্যাসেজ ‘। অর্থাৎ শিশুরা যেটা বলবে তা যেমন সরকার জানতে পারবে এবং সরকার যেটা বলবে তা শিশুরা তাদের নেটওয়ার্ক দ্বারা ই জানতে পারবে।

বিজ্ঞাপন

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর...

বিজ্ঞাপন

মাহে রমজানের সাহরী ও ইফতারের সময়সূচী::

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Customized BY LatestNews