1. milon@desher.news : Milon :
  2. shahriar@desher.news : Shahriar :
শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞাপন

ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী দুর্ভোগ বন্ধের দাবী: যাত্রী কল্যাণ সমিতি

দেশের নিউজ ডেস্ক::
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১ এপ্রিল, ২০২১
গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি কঠোর অনুসরণ, ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী দুর্ভোগ বন্ধের দাবী: যাত্রী কল্যাণ সমিতি
অফিস আদালতসহ কর্মসংস্থানের সকল কার্যক্রম খোলা রেখে, পর্যাপ্ত গণপরিবহনের ব্যবস্থা ব্যতিরেখে, দেশব্যাপী ক্রমবর্ধমান করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় গতকাল থেকে শুরু হওয়া গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী বহন ও ৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়া আদায়ের সিদ্ধান্ত বাতিল করে পূর্বের ভাড়ায় যত সিট তত যাত্রী পদ্ধতিতে ফেরত আসার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। একই সাথে রাইট শেয়ারিংরের মোটরসাইকেল বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিল করে সকল শ্রেণীর গণপরিবহনে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী কঠোরভাবে অনুসরণ চালক, যাত্রী ও পরিবহন শ্রমিকদের মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি পরিপালনে মনিটরিং ব্যবস্থা জোরদার করার দাবি জানাই সংগঠনটি। অন্যথায় কৃত্রিমভাবে সৃষ্টি গণপরিবহনের ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী দুর্ভোগের যাবতীয় দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে বলে অভিযোগ করেন সংগঠনটি।
করোনা সংকটে দেশব্যাপী শুরু হওয়া যাত্রী দুর্ভোগ ও ভাড়া নৈরাজ্য পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ শেষে আজ ১ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব মোজাম্মেল হক চৌধুরী এ দাবি জানান।
বিবৃতিতে তিনি বলেন, করোনা সংকটে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরনপূর্বক অর্ধেক যাত্রী নিয়ে গণপরিবহন চালানোর জন্য বাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করা হলেও এখন দেশের অধিকাংশ গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। সিটি সার্ভিস ও শহরতলীর বাস, হিউম্যান হলার, অটোটেম্পুসমূহে বর্ধিত ভাড়া নিয়ে সেই পুরনো কায়দায় গাদাগাদি করে যাত্রী বহন করা হচ্ছে। এতে কর্মজীবি, শ্রমজীবি ও নি¤œ আয়ের সাধারণ লোকজন, কর্মহীন ও আয় কমে যাওয়া দেশের সাধারণ মানুষের যাতায়াত দুর্বিসহ হয়ে পড়েছে। এছাড়াও সকল অফিস আদালত খোলা থাকায় অর্ধেক যাত্রী নিয়ে সিটি সার্ভিসের বাসগুলো চলাচলের ফলে রাস্তায় প্রতিটি বাস স্টপেজে শত-শত যাত্রী ঘন্টার পর ঘন্টা রাস্তায় অপেক্ষা করে গণপরিবহন পাচ্ছে না। এতে করে নারী, শিশু, অসুস্থ রোগী ও অফিসগামী যাত্রীরা অবর্ননীয় দুর্ভোগে পড়ছে। হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়া বাড়তি ভাড়া আদায়কে কেন্দ্র করে প্রতিটি রুটে চলাচলকারী গণপরিবহনে যাত্রী-শ্রমিক বশচা(গ্যাঞ্জাম), হাতাহাতি, মারামারি চলছে।
উল্লেখ্য যে, সরকার করোনাকালে পরিবহন সেক্টরে কোন প্রকার ভুতর্কি না দিয়ে মালিকদের প্রস্তাব মত যাত্রী সাধারণের সাথে কোন প্রকার আলাপ-আলোচনা ব্যতিরেখে, জনগণের উপর একচেটিয়াভাবে বাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করে অযৌক্তিকভাবে চাপিয়ে দিলে সাথে সাথে দেশব্যাপী চলাচলরত বাস-মিনিবাসের সাথে লেগুনা, হিউম্যান হলার, টেম্পু, অটোরিক্সা, প্যাডেলচালিত রিক্সা, ইজিবাইক, নসিমন-করিমন, টেক্সিক্যাবসহ সকল প্রকার যানবাহনের ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গেছে। এতে যাত্রীস্বার্থ চরমভাবে উপেক্ষিত হয়েছে, ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী হয়রানী বেড়েছে। বিবৃতিতে তিনি দেশের লকডাউন বা সাধারণ ছুটি ঘোষনা না করা হলে, যত সিট তত যাত্রী (বিআরটিএ নিবন্ধিত আসন অনুযায়ী) পদ্ধতিতে পূর্বের ভাড়ায় যাতায়াতের কঠোর স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ পূর্বক যাত্রী পরিবহন, একই সাথে গণপরিবহণের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে দেশের প্রতিটি রুটে বর্ধিত ভাড়া পুর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহনের দাবি জানান তিনি।
মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী
যাত্রী কল্যাণ সমিতি মহাসচিব
মোবাঃ ০১৭৪৩৭৭৯৬৭২

বিজ্ঞাপন

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর...

বিজ্ঞাপন

মাহে রমজানের সাহরী ও ইফতারের সময়সূচী::

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞাপন

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Customized BY LatestNews